magazine_cover_12_july_18.jpg

Anandalok Review

এক বিপন্ন কৈশোর

পর্ণমোচী
pornomochi-still

পরিচালক: কৌশিক কর
অভিনয়: ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়, অনিন্দ্য বন্দ্যোপাধ্যায়, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, অঙ্কিতা ভট্টাচার্য, কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়

আমাদের মধ্যবিত্ত নিউক্লিয়ার ফ্যামিলিতে কৈশোর আজ একা। দাদু-ঠাকুরমার সঙ্গ থেকে তারা বঞ্চিত। মা-বাবার ব্যস্ত কর্মসূচীর ফলে, তাদের থেকেও সময় পায় না। অবধারিতভাবে সেই কৈশোরের মনে জন্মায় নানারকমের বিকৃতি। এই গল্প সেই বিপন্ন কৈশোরের কথা বলে। পাশাপাশি, নাগরিক সমাজের অন্দরমহলটা যে যৌনবিকৃতির কোন তলদেশে এসে ঠেকেছে, এই ছবি তারও ভাষ্য হয়ে ওঠে। ছবির গল্পে, অনল (ঋতব্রত) বাবা-মা-র একমাত্র সন্তান। স্বাভাবিক পরিবেশে বড় হলেও বয়ঃসন্ধির নেশায় পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে পড়ে সে। স্কুলে ধরা পড়ার পর মা (অঙ্কিতা) বকলেও, বাবা (অনিন্দ্য) বন্ধুর মতো বিষয়টি বোঝায় তাকে। কিন্তু বিষয়টি গুরুতর হয়ে ওঠে যখন অনলের বাবা মারা যান। বাবার মৃত্যুর পর অনল একটি পেনড্রাইভে কিছু ভিডিও পায়। এই ভিডিয়ো তার জীবনকে অন্যখাতে বইয়ে দেয়। এরপরই গল্পে আসে একটা ছকভাঙা টুইস্ট। গ্রীক রাজা অয়দিপাউসের নিয়তির সঙ্গে অনলের নিয়তি কোথাও যেন এক ফ্রেমে চলে আসে। এই কাহিনির সঙ্গে উঠে আসে এক পুলিশের (শান্তিলাল) জীবন ও তার যৌনবিকৃতি। যদিও মূল কাহিনির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে তার কতটা প্রয়োজন ছিল সে প্রশ্ন উঠে আসতেই পারে। দৃশ্যগ্রহণের কিছু মুহূর্তে মুন্সিয়ানা দেখানো হয়েছে। এছাড়াও সিনেমায় রয়েছে কিছু আবহহীন দৃশ্য, যা মুহূর্তকে অন্য মাত্রা দিয়েছে। সব শেষে অভিনয়ের বিষয়ে আসা যাক। অনল চরিত্রে অসাধারণ কাজ করেছেন ঋতব্রত। অন্যান্য চরিত্রবিন্যাসে শান্তিলাল, কনীনিকা, অনিন্দ্য, অঙ্কিতা প্রত্যেকেই যথাযথ।

এখন আপনার রিভিউ প্রকাশিত হতে পারে আনন্দলোক-এ। সিনেমা দেখে
চটপট লিখে ফেলুন রিভিউ আর ইমেল করুন

[email protected]