magazine_cover_12_october_18.jpg

Anandalok Review

তীরে এসে তরী….

পিয়া রে

piya-re-big

পরিচালনা: অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়

অভিনয়ে: সোহম, শ্রাবন্তী, সোমরাজ মাইতি, সুপ্রিয় দত্ত, কাঞ্চন মল্লিক

কেন এমন করলেন পরিচালকমশাই? গল্পটা ভালই ভেবেছিলেন। গতি মন্থর হলেও এগোচ্ছিল। কিন্তু শেষে গিয়েই তো কেঁচে গণ্ডুষ করে ফেললেন। ঘুড়ির সুতো গোটাতে না পারলে, ঘুড়ি কেটে উড়িয়ে দেবেন! রবি (সোহম) নিম্ম মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে। সামান্য ব্যবসা করে সংসার দাঁড় করাতে চাইছে। অন্যদিকে রিয়া (শ্রাবন্তী) বস্তিতে থাকে। দু’জনের দেখা হয়। রবির তরফ থেকে হৃদয়ের দরজা খুলে যায়। আর রিয়া? কখনও মনে হয়, রিয়াও ভালবাসে আবার কখনও মনে হয়, না ভালবাসে না। এটা সম্পূর্ণভাবে স্ক্রিপ্টের দোষ। স্ক্রিপ্ট রিয়াকে সঠিক নির্দেশ দেয়নি হয়তো। এর মধ্যেই আবির্ভাব হয় ধনী বাবার ছেলে আদিত্যর (সোমরাজ)। সে কিনা আবার রবির শত্রুও বটে। যাই হোক আদিত্যরও রিয়াকে চাই। তবে একটা প্রশ্নই…আদিত্য সত্যি রিয়াকে ভালবেসে ছিল নাকি রবিকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য… উত্তর পাওয়া যায়নি। তারপর হঠাৎ রিয়া একদিন আদিত্যর সঙ্গে পালিয়ে যায়। অথচ রবিকে ভালবাসে সেটাও বলে যায়। বাকিটা বললে মজাই নষ্ট। পরিচালক মশাই গল্পে একটা টুইস্ট দিয়েছেন। কিছু সত্যিকে তুলে ধরতে চেয়েছেন। অভাবের সামনে ভালবাসা হেরে যায়, টাকার চেয়ে বড় কিছু হয় না… এরকমই আরও কিছু। কিন্তু এই বোঝাতে গিয়ে বড্ড প্যাঁচ দিয়েছেন। তা ছাড়া বেশ অন্যপথে এগোচ্ছিলেন, হঠাৎই গোঁত্তা খেয়ে কেন যে চেনা রাস্তায় ঢুকতে গেলেন! এর চেয়ে যদি প্রেমকে সমাজের উপর তুলে নিয়ে যেতে পারতেন, তাহলেই না মুনসিয়ানা। যাই হোক, গল্পের গতি বড্ড ধীর। ফলে মাঝে-মাঝে ধৈর্য রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। একটু কাটছাঁট করাই যেতে পারত। এই বুঝি শেষ হল, এই বুঝি শেষ হল ভেবে-ভেবে যখন শেষ হয়, তখন মনে হয়, ‘এটা কী হল?’ জোর করে চোখের জল আনতেই কি এমন শেষ? পরিচালকমশাই বোধহয় ভেবেছেন ‘ইমোশনাল’ বাঙালিকে কাঁদাতে পারলেই… কিন্তু চোখের জল তো এল না। বরং মনে হল, সস্তায় বাজিমাত করার চেষ্টা। নাকি অন্যরকম করতে ‘ভয়’ পেয়েছেন? অভিনয়ে সোহম এবং শ্রাবন্তী সসম্মানে উত্তীর্ণ। বড্ড মন ছুঁয়ে যায় তাঁদের দৃশ্যগুলো। শ্রাবন্তীকে বেশ সুন্দর লেগেছে। অভিনয় আর সৌন্দর্যের পারফেক্ট ব্লেন্ডিং তিনি। আর সোহমের সাবলীল অভিনয় বোঝায় তিনি অনেক কিছু প্রমাণ করছেন এবং প্রতিনিয়ত প্রমাণ করে চলেছেন। সোমরাজ খুব বেশি কিছু করেননি। সুপ্রিয় এবং কাঞ্চনের কাছে এটাই চাওয়ার ছিল। ছবির গান বেশ ভাল। গল্পের অপমৃত্যু ঘটিয়েই বিপত্তি।