magazine_cover_12_december_19.jpg

Anandalok Review

মঙ্গল হোক

মিশন মঙ্গল
mission-mangal-still

পরিচালনা: জগন শক্তি
অভিনয়: অক্ষয়কুমার, বিদ্যা বালন, তাপসী পন্নু, শরমন যোশী, সোনাক্ষী সিনহা

গল্পটা এক লাইনের। ভারত মঙ্গল অভিযান করল এবং যথাসাধ্য কম খরচে করল।সত্যি, চিত্রনাট্যে কোনও বৈচিত্র নেই।নেই, নাটকীয় মোড়ও। আছে, শুধু অভিনয় গুণে একটি সাধারণ গল্পকে অনন্য মোড়কে পরিবেশনের চেষ্টা।রাকেশ(অক্ষয়)ইসরোর এক বৈজ্ঞানিক।তাঁর অধীনে কাজ করেন তারা(বিদ্যা)।রাকেশ একটি ব্যর্থ মহাকাশ অভিযানের নেতৃত্ব দেন। ব্যর্থতার কারণ তারা হলেও রাকেশ পুরো দায় নিজের কাঁধে নেন। ফল, তাঁকে ঠেলে দেওয়া হয় আকাশ কুসুমের দিকে মানে মঙ্গল অভিযানের প্ল্যানিংয়ে। তারা নিজের ব্যর্থতার ভুল শুধরানোর জন্য রাকেশের সঙ্গে এই অভিযানে যোগ দেন। একে-একে আসে কীর্তি (তাপসী), নেহা (কীর্তি), পরমেশ্বর (শরমন), একা (সোনাক্ষী) এবং অশতিপর এক বৃদ্ধ ইঞ্জিনিয়ার (দত্তাত্রেয়)। তারা আর রাকেশ ছাড়া প্রত্যেকেই অনভিজ্ঞ এবং ব্যক্তিগত সমস্যা নিয়ে অতিষ্ঠ। কিন্তু তাঁরাই কিনা সফল হলেন। অভিনয়ে সকলেই অসাধারণ। অক্ষয় অসম্ভব মার্জিত অভিনয় করেছেন। কোথাও কোনও অতিশয়োক্তি নেই। বিদ্যার অভিনয় নিয়ে কথা বলা বাতুলতা মাত্র। প্রতিবারেরই মতো তিনি এবারও প্রমাণ করেছেন, অভিনয়ের দিক দিয়ে বাকিদের তিনি দশ গোল দেবেন। নিজের কাজের প্রতি অসম্ভব ভালবাসার সঙ্গে সন্তানদের প্রতি কর্তব্য পালন (অতিরিক্ত কোনও বাড়াবাড়ি নয়, আজকের জগতে ওয়র্কি মাদার এমনই হয়) চরিত্রের প্রয়োজনে তিনি দশভূজা হয়েছেন। তাপসী, সোনাক্ষী, কৃতি, শরমন এবং দত্তাত্রেয় সাবলীল। পরিচালককে ধন্যবাদ, সুযোগ থাকা সত্ত্বেও ছবি জুড়ে সস্তা দেশভক্তির আবেগ (কয়েকটি জায়গায় অবশ্য লোভ সম্বরণ করতে পারেননি। বিশেষত অক্ষয়ের চরিত্রের মুখের সংলাপের ক্ষেত্রে) ছড়াননি। বিজ্ঞান আর ভগবানের মিষ্টি সামজ্ঞস্য ভাল লাগে। ভাল লাগে, সমাজের পরিবর্তিত রূপটিকে তুলে ধরার জন্য (বর্ষার সাপোর্টিং স্বামীর চরিত্রটি তার প্রমাণ)।কিন্তু স্যাটেলাইটের প্রদক্ষিণ দৃশ্যে অপটু ক্যামেরা ছবিটিকে দুর্বল করেছে। ঠিক তেমনই মঙ্গলে রকেট পাঠানোর প্রক্রিয়াটিও ঠিক জমে না।তাতে অবশ্য চিত্রনাট্যের কোনও ক্ষতি হয়নি। যে কাজটি অতীব সূক্ষভাবে পরিচালক করেছেন, সেটি হল নারী শক্তির জয়গান (না ছবিটিকে জনপ্রিয় করার জন্য কল্পনাপ্রসূত এটি হয়নি।বাস্তবেও ইসরোয় কর্মরত ভারতীয় কন্যারাই মঙ্গল অভিযান করেছেন কিন্তু)এটাই পরিচালকের তুরুপের টেক্কা হয়েছে। মেয়েদের কাঁধে চড়ে মঙ্গল অভিযান জমে গিয়েছে।