magazine_cover_12_november_18.jpg

Anandalok Review

আবেগের ওভারডোজ়

হেলিকপ্টার ঈলা

eela-still

পরিচালনা: প্রদীপ সরকার

অভিনয়ে: কাজল, ঋদ্ধি সেন, টোটা রায় চৌধুরী, নেহা ধুপিয়া

আবেগের ওভারডোজ় বোঝেন? হেলিকপ্টার ঈলাকে তার সমার্থক ধরতেই পারেন। একজন ছেলেসর্বস্ব ঘ্যানঘ্যানে মা আর তার স্মার্ট ছেলে— এই হচ্ছে গপ্পের মোদ্দা কথা। না আরও ভাল করে বলতে গেলে ছেলের ক্রমাগত মাকে বুঝিয়ে যাওয়া যে, মা গো, আমাকে স্পেস দাও, আমাকে নিজের মতো থাকতে দাও ইত্যাদি নিয়ে খিচুড়িমার্কা একখানা ছবি নামিয়েছেন পরিচালক প্রদীপ সরকার। হ্যাঁ মেনে নিচ্ছি এটা বলিউড ছবি, এখানে লার্জার দ্যান লাইফ আর বিনোদনকে প্রাধান্য দেওয়া হয়, তাই বলে গল্পের গরু এভাবে গাছে উঠে যাবে? ঈলা রাইতুরকর (কাজল), স্বপ্ন তার প্লে ব্যাক সিঙ্গিং, নিজের মিউজ়িক ভিডিও লঞ্চ করা । এদিকে যেই সেই ভিডিও শুটিং স্থগিত হয়ে গেল অমনি সে করে ফেলল বিয়ে। ইতিমধ্যে ছেলেও হয়ে গেল, আর তার স্বামীও হঠাৎ করে মৃত্যুভয় ডেস্টিনি ইত্যাদি গল্প দিয়ে তাকে ছেড়ে চলে গেল। তারপর পরে রইল কী? একা মায়ের ছেলেকে বড় করে তোলা, যার সিংহভাগ জুড়ে শুধু ছেলে ভিভান( ঋদ্ধি সেন)-এর চারপাশে হেলিকপ্টারের মতো ঈলার জীবনযাপন। ছেলেকে ছাড়া আর কিছু বোঝে না সে। এমনকি ছেলে যখন নিজের জন্য কিছু করতে বলে তখনও সে খুঁজে নেয় স্নাতক শেষ করার জন্য ছেলের কলেজ। কাগজে তার নাম ছাপা হয় একজন সিঙ্গল মাদারের পুনরায় পড়াশুনো শুরুর তকমা দিয়ে। তারপর? গোটা ছবি জুড়ে শুধু মা আর ছেলের লড়াই। ছেলে বলে আমাকে স্পেস দাও, মা বলে তুই আমার সব। ফলে দু’ ঘণ্টা এগারো মিনিট ছবিটিতে আগ্রহ ধরে রাখা ভীষণই শক্ত। ভিভানের সাফোকেশন দর্শকের মধ্যেও সঞ্চারিত হবে! কেন শেষ হচ্ছে না ছবিটা! মানে ঠিক বোঝা গেল না পরিচালকের বক্তব্য, ঠিক কী মেসে‌জ তিনি দিতে চেয়েছেন। ভারতীয় বাবা মায়ের ছেলেমেয়েদের উপর থেকে নজরদারি হঠানো উচিত? মানুষ নিজের স্বপ্নপূরণ যে কোনও বয়সে করতে পারে? আরে বলতে চাইছেনটা কী? ক্লাইম্যাক্সের দৃশ্য তো সম্পূর্ণ অবাস্তব, আবেগের রসে মাখোমাখো। গানগুলো পর্যন্ত মনে দাগ কাটে না। বাকি রইল অভিনয়— কাজলের পর্দায় উপস্থিতি এখনও মারকাটারি। ঋদ্ধি কোথাও কোথাও বেশ ওভার অ্যাক্টিং করেছেন। টোটার বিশেষ সুযোগ ছিল না খাপ খোলার। নেহা ধুপিয়া অল্পসময়ে বেশ ভাল ছাপ রেখেছেন। সবমিলিয়ে ‘হেলিকপ্টার ঈলা’ সামাজিক কাঠামো আর বিনোদনকে মিশিয়ে বানাতে চাওয়া একটি হতাশ করা ছবি, নিঃসন্দেহেই।

এখন আপনার রিভিউ প্রকাশিত হতে পারে আনন্দলোক-এ। সিনেমা দেখে
চটপট লিখে ফেলুন রিভিউ আর ইমেল করুন

[email protected]