magazine_cover_12_october_17.jpg

Anandalok Review

১০০ শতাংশ এন্টারটেনমেন্ট!

বেফিকরে
befikre-still
পরিচালক: আদিত্য চোপড়া
অভিনয়: রণবীর সিংহ, বাণী কপূর

হিন্দি ছবিতে সাধারণত প্রথমে বন্ধুত্ব হয়…তারপর প্রেম। তারপর মনে হয়, প্রেমটা না হয়ে শুধু বন্ধুত্ব থাকলেই বোধহয় ভাল হত! কিন্তু আদিত্য চোপড়া পরিচালিত ‘বেফিকরে’-তে, প্রথমে প্রেম হয় (এখানে প্রেম মানে কিন্তু শুধুই উদ্দাম যৌনতা, কমিটমেন্টের কোনও গল্প নেই)। তারপর প্রেম কেটে গিয়ে শুধুই বন্ধুত্ব। আর তারপর…না, সেটা বরং প্রেক্ষাগৃহের জন্যই তোলা থাক। ছবির গল্প পুরোটাই প্যারিসে। কর্মসূত্রে দিল্লির ছেলে ধরম (রণবীর) প্যারিসে যায়। সেখানে তার এক বন্ধুর লাউঞ্জে স্ট্যান্ড আপ কমেডি শো করে সে। এদিকে পঞ্জাবি বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে শায়রা (বাণী) প্যারিসেই বড় মানুষ। গাইডের কাজের পাশাপাশি সে নিজের পারিবারিক রেস্তোরাঁতে ওয়েট্রেসেরও কাজ করে। ধরম-শায়রার দেখা হয়। প্রথম রাতেই শারীরিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর লিভ ইন, ব্রেক আপ…আরও অনেক কিছু। এই ছবির হাত ধরে বহুবছর পরে আরও একবার পরিচালকের আসনে আদিত্য চোপড়া। বলিউডে একটা সময় আদিত্য মাস্টারপিস লভ স্টোরি উপহার দিয়েছেন। কিন্তু এই ছবিতে তাঁর কাজ একেবারে অন্যরকম। সরষে ক্ষেত বা বরফচূড়ায় নায়ক-নায়িকার হাত ধরে প্রেমের কনসেপ্ট ঝেড়ে ফেলে, আদিত্য এই সময়ের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিজেকে মেলে ধরেছেন। একেবারে সময়োপযোগী একটা গল্প দর্শকদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। গল্পে নতুনত্ব হয়তো কিছুই নেই, প্লটে লজিকেরও অভাব রয়েছে, কিন্তু আদিত্যর এই চেষ্টাকে কুর্নিশ জানাতেই হয়। এই ছবিতে ‘চুমু’ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র! ছবির টাইটেল কার্ডের দৃশ্য থেকে শুরু করে ক্লাইম্যাক্স অবধি, প্রচুর চুমুর দৃশ্য রয়েছে। এই বিষয়টি গুরুজনদের ভাল না লাগলেও, তরুণদের কিন্তু দিব্যি লাগবে। গল্প দুর্বল হলেও, ধরম এবং‌ শায়রা, এই দু’টি চরিত্রের সঙ্গে আজকের তরুণ প্রজন্ম খুব ভাল রিলেট করতে পারবে। লজিক হলের বাইরে রেখে আসতে পারলে, ছবিটি দেখতে বেশ ভাল লাগবে। তার একটি কারণ যদি আদিত্যর প্রেজ়েন্টেশন হয়, তা হলে আরও একটি কারণ হল ধরম-শায়রার অনবদ্য অনস্ক্রিন কেমিস্ট্র। রণবীর এবং বাণী, দুজনেই প্রশংসার দাবিদার। এত ন্যাচারাল অভিনয়, অনেকদিন পর হিন্দি ছবিতে দেখা গেল। রণবীর ভাল অভিনেতা, এটা সকলেই জানেন। কিন্তু বাণীর কাজ তাক লাগিয়ে দেয়। তাঁর চেহারা কিছুটা পুরুষালি এবং উচ্চারণে জড়তা থাকলেও, ছবিতে শায়রার চরিত্রের জন্য তিনি একেবারে পারফেক্ট। অভিনয়ের পাশাপাশি রণবীর ও বাণীর ডান্স, অসামান্য। তার সঙ্গে বিশাল-শেখরের মিউজ়িক ‘বেফিকরে’-কে ১০০ শতাংশ উপভোগ্য করে তোলে।

এখন আপনার রিভিউ প্রকাশিত হতে পারে আনন্দলোক-এ। সিনেমা দেখে
চটপট লিখে ফেলুন রিভিউ আর ইমেল করুন

[email protected]