magazine_cover_12_january_19.jpg

Tolly News

রোমাঞ্চ এবং প্রকৃতির মিশেল

অ্যাডভেঞ্চারস অফ জোজো

jojo-still

পরিচালনা: রাজ চক্রবর্তী

অভিনয়ে: যশোজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, সামিউল আলম, রুদ্রনীল ঘোষ, পদ্মনাভ দাশগুপ্ত

এই সিনেমা পুরোদস্তুর ছোটদের। ফলে লজিক খুঁজতে গেলে বড়রা একটু হতাশ হলেও হতে পারেন। কিন্তু রাজকে ধন্যবাদ ছোটদের জন্য এমন একটি নিটোল গল্প ভাবার জন্য। ছোট্ট জোজো (যশোজিৎ) তার জেঠুর সঙ্গে বড়পাহাড়ির জঙ্গলে ঘুরতে যায়। সেখানে তার সঙ্গে আলাপ হয় আদিবাসী ছেলে শিবুর (সামিউল)। দু’জনে মিলে কীভাবে চোরাশিকারীদের শায়েস্তা করে জঙ্গলের কেঁদো বাঘ চেঙ্গিসকে তাদের হাত থেকে বাঁচায়, সেটাই ‘অ্যাডভেঞ্চারস অফ জোজো’র গল্প। রাজ খুব মিষ্টি করে গল্পের সঙ্গে অ্যাডভেঞ্চার এবং অ্যাডভে়ঞ্চারের সঙ্গে প্রকৃতিকে মিশিয়েছেন। তাতে যেমন জ্যাঠা-ভাইপোর গল্পের মধ্যে দিয়ে জানা গিয়েছে জঙ্গলের অজানা সব গল্প, তেমনি পাওয়া গিয়েছে পরিবেশ সচেতনতার পাঠও।

অভিনয়ের দিক থেকে জোজোর ভূমিকায় নবাগত যশোজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় কিংবা ‘শিবু’রূপী সামিউল আলমের ভূমিকা প্রশংসনীয়। মনে হয়নি যশোজিতের এটি প্রথম ছবি। সাধুবাদ জানাতে হয় পদ্মনাভ দাশগুপ্ত এবং রুদ্রনীল ঘোষকেও। দক্ষ সিনেমাটোগ্রাফির ফলে জঙ্গলের পরিবেশ খুব ভালভাবে ধরা দিয়েছে। তবে সেভাবে মন কাড়তে পারেনি গানগুলো। কিন্তু কয়েকটি কথা না বললেই নয়… কিছু দৃশ্য খুবই দৃষ্টিকটূ ঠেকে। নিঃসন্দেহে ছোটদের সিনেমাতে কিছু অতিরঞ্জন থাকবে, কিন্তু তার একটা মাত্রা থাকা প্রয়োজন। শুধুমাত্র জোজো-শিবুকে হিরো বানানোর চেষ্টা না করলে কয়েক জায়গায় হয়তো অ্যাকশন দৃশ্যগুলোকে একটু বাস্তবায়িত করা যেত। গল্পের বুনোট আরও টানটান হতে পারত। প্রথমার্ধের শেষে যে উত্তেজনাটা তৈরি হয়, দ্বিতীয়ার্ধের শেষে সব যেন কোথাও অঙ্ক মেলানোর মতো করে মিলিয়ে দেওয়া বলে মনে হয়। তাও বলা যায়, রাজের এই ছবি ছোটদের ছবির ধারায় নতুন অক্সিজ়েন জোগাবে।