magazine_cover_12_january_17.jpg

Anandalok Review

  • x

    অলীক সুখ

    ‘ইচ্ছে’, ‘মুক্তধারা’র সাফল্যের পর ফের নতুন ছবি নিয়ে হাজির শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়। ‘অলীক সুখ।’ যদিও ছবির ভাল-ম্নদ বিচার করতেই এই প্রতিবেদন, কিন্তু বলতে বাধা নেই, এবারের পরীক্ষাটি বেশ কঠিনই ছিল শিবপ্রসাদ-নন্দিতার কাছে। আর সেটা হল, প্রত্যাশা বহন করার পরীক্ষা। আগের ছবিগুলো মারকাটারি হয়েছে বলেই, এঁদের দু’জনের কাছ থেকে দর্শকদের চাহিদা বেশি। বলা যেতে পারে, পান থেকে চুন খসলেই যেন সমালোচনার খাঁড়া নেমে আসত এঁদের উপর। কিন্তু সেদিক থেকে দেখতে গেলে, এঁর একপ্রকার সফলই। না, ‘ইচ্ছে’ বা ‘মুক্তধারা’ হয়তো হয়নি, কিন্তু ‘অলীক সুখ’ নিজের মতো করেই ভাল।

    More
  • x

    ভাল মিলখা ভাগ

    পুরো সিনেমাটা জুড়ে ফারহান এবং ফারহান! তাতে অবশ্য অন্যায় কিছু নেই। কারণ, ছবিটি তৈরি মিলখা সিংহকে নিয়ে। আর এখানে ফারহানই তো মিলখা। বর্তমান দর্শকসংখ্যার বেশিরভাগ অংশ মিলখাকে দৌড়তে দেখেননি। হতে পারেননি, তাঁর গৌরবজনক অতীতের সাক্ষী। তাঁদের কাছে মিলখা মানেই বাপ-ঠাকুরদার মুখের গল্প। সেই মিলখাকে নতুন করে তুলে আনার জন্য ধন্যবাদ প্রাপ্য পরিচালক রাকেশের।

    More
  • x

    ঘনচক্কর

    সঞ্জু (ইমরান হাশমি) পেশায় ব্যাঙ্ক ডাকাত। নানা ধরনের জটিল লকওয়ালা সিন্দুক খুলতে তার জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু নিতুকে (বিদ্যা বালন) বিয়ে করার সময় থেকে তাদের মধ্যে কথা হয়ে গিয়েছে যে, ডাকাতি আর নয়। যদিও ব্যবস্থাপনায় নিতু বিশেষ খুশি নয়। যাই হোক, এমন সময় তার কাছে ডাকাতির প্রস্তাব দিয়ে একটি ফোন আসে। লোভে পড়ে শেষ পর্যন্ত রাজি হয় সঞ্জু…

    More