magazine_cover_12_may_18_3.jpg

Music Interview

পয়লা বৈশাখে মুক্তি পাচ্ছে সুরজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের নতুন মিউজ়িক ভিডিয়ো ‘আমি সেই’। সেই গান নিয়ে কথা বললেন তিনি। শুনলেন সায়ক বসু

surojit-big

প্র: ‘আভ্যন্তরীণ’ অ্যালবামের ‘আমি সেই’-এর মিউজ়িক ভিডিয়ো মুক্তি পাচ্ছে পয়লা বৈশাখের দিন। কোনও উত্তেজনা বোধ করছেন?
উ: এতদিন সেভাবে উত্তেজনা ঠিক বোধ করতাম না। নিজের সৃষ্টিকে ভিডিয়ো আকারে দেখতে তো ভালই লাগে এমনিতে। কিন্তু এবার উত্তেজনাটা বাড়িয়ে দিয়েছে ‘আনন্দলোক’ এবং ‘সুরজিৎ ও বন্ধুরা’র করা প্রতিযোগিতাটি। আমার গানের ক্যাচলাইনটি যেভাবে বিভিন্ন বয়সের মানুষ গেয়ে পোস্ট করছেন, আমি অভিভূত।

surojit-big02

প্র: আমাদের ইচ্ছে করছে জানতে, এই গানটি কীভাবে তৈরি করলেন?
উ: ‘আমি সেই’ লেখা হয়েছিল ‘আভ্যন্তরীণ’ অ্যালবাম রিলিজ়ের মাসতিনেক আগে। শিলিগুড়িতে একটা শো করতে গিয়েছিলাম। আমরা ওখানে ছিলাম একটা গেস্ট হাউজ়ে। রাতে শো করে ফিরে বারান্দায় দাঁড়িয়ে আছি। হঠাৎ মাথায় এল একটা লাইন, ‘‘ছায়ারা সারি সারি, তারাদের লুকোচুরি।’’ ব্যস, ওইটুকুই। তারপর মোবাইলে লিখতে শুরু করি। মনে আছে একটা লাইন লিখেছিলাম, ‘‘আমি সেই আমি সেই। সেই তোমার সাথে, তোমার সাথে আছি কোনওমতে।’’ তবে কলকাতায় ফিরে আসার পর গানটার সুর হয়। আর কমলিনী, মানে আমার স্ত্রী গানটার একটা লাইন পালটে করে, ‘‘একলা গিটার হাতে। তোমার সাথে আছি কোনওমতে।’’

 

প্র: তা এই গানটারই ভিডিয়ো করার ইচ্ছে হল কেন?
উ: ওইভাবে ইচ্ছে নয়। এর আগে ‘আভ্যন্তরীণ’-এর মিউজ়িক ভিডিয়ো করেছি। টালিগঞ্জে আমাদের অফিসের ছোট্ট ঘরে শুট করেছিলাম। ‘চড়ুই পাখির পাড়া’ও তৈরি হয়েছিল আমাদের বাড়ির ছাদে। কিন্তু এই অ্যালবামটা করার সময় বেশ খাটা-খাটনি হয়েছে।

 

surojit-big03

প্র: এটা তো বোধ হয় বর্ধমানে শুট করা হয়েছে।
উ: হ্যাঁ, পাল্লারোড নামে একটা জায়গায়। একটা সরকারি গেস্ট হাউজ় আছে, সেখানে। আমরা দুটো ডিএসএলআর নিয়ে চলে গিয়েছিলাম ওখানে। তারপর দু’দিন ধরে শুট করি। এখানে আমার মনে পড়ছে একটা গাছের কথা। ভিডিয়োটা দেখলে বুঝবেন। ওই গাছটার চারপাশে শুট করেছিলাম। পাতা ছিল না। কিন্তু বিশাল বড় গাছ। এখন সেই গাছটা আর নেই। কেটে ফেলা হয়েছে।

 

প্র: গানটার ক্যাচলাইনটা কিন্তু এখনই মানুষের মুখে-মুখে ফিরছে।
উ: এটার জন্য প্রতিযোগিতাটাকে কৃতিত্ব দিতেই হয়। তবে এই লাইনটা কিন্তু প্রথমে আমার মাথায় আসেনি। রেকর্ডিংয়ের দিন সকালে মনে হয়েছিল, এই সুরটা গানটাকে একটা আলাদা পাঞ্চ দিতে পারে। যাক, সেটা সফল হয়েছে।