magazine_cover_12_september_17.jpg

Tolly Interview

ভেবেছিলাম, অন্তত আমার সঙ্গে রাজ চক্রবর্তীর নাম জড়াবে না: মিমি চক্রবর্তী

x

 

তাঁর হাতে এখন পরপর ছবি।কিছুদিনের মধ্যে মুক্তি পাবে ‘প্রলয়।’ শুটিং চলছে আরও দু’টি ছবির। এত ব্যস্ততার মধ্যেই মিমি চক্রবর্তী কথা বললেন ঋষিতা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে

 

ছোট পর্দার গানের ওপারেপুপের পর, ‘বাপি বাড়ি যাদোলাহয়ে বোঝে না সে বোঝে নারিয়াছোট পর্দা থেকে বড় পর্দার জার্নিটা কেমন ছিল?

একটা কথাই বলব, আমি প্রচণ্ড ভাগ্যবতী। এমন সুযোগ কেউ পায় না। জীবনের প্রথম কাজেই ঋতুপর্ণ ঘোষ, প্রসেনজিতের মতো মানুষদের সান্নিধ্যে এসেছি। বড় পর্দাতেও প্রথমেই রানাদা, সুদেষ্ণাদি, রাজের মতো পরিচালকের সঙ্গে কাজ করেছি। ‘গানের ওপারে’ হিট করার পর আমার কাছে প্রচুর অফার আসছিল। কিন্তু সবই ওই ‘পুপে’র মতো চরিত্র। আমি ঠিকই করেছিলাম, একই ধরনের চরিত্র করব না। এমন সময় বুম্বাদা একদিন বলল, আমাকে আর অর্জুনকে নিয়ে একটা ছবি করবে। এভাবেই ‘বাপি বাড়ি যা’ শুরু হয়। ছবির পরিচালক রানাদা এবং সুদেষ্ণাদি। ছবিটা প্রযোজনা করেছিল আইডিয়াজ় ক্রিয়েশন প্রাইভেট লিমিটেড এবং শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস প্রাইভেট লিমিটেড। ভাবুন, প্রথম ছবিতেই স্বপ্নের প্রযোজক আর পরিচালক। আমি আসলে এসকে মুভিজ়ের ‘শত্রু’র জন্য অডিশন দিয়েছিলাম। সেখানেই রাজের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরে রাজ ‘গানের ওপারে’ দেখেছিল। কাজ ভাল লেগেছিল বলেই ‘বোঝে না সে বোঝে না’য় আমাকে নেয়।

 

আচ্ছা, টলিউডে একটা ধারণা আছে, কমার্শিয়াল ছবির হিরোইন মানেই একটা টিপিক্যাল লুক থাকবে, ছবিতে তাঁর কিছুই করার থাকবে নাআপনি তো সেই টিপিক্যাল’-এর চেয়ে অনেকটাই আলাদাআপনার কি মনে হয়, ওই ধারণাটা ভেঙেছে?

হ্যাঁ, কিছুটা হলেও ভেঙেছে। তবে পুরোটা ভাঙেনি। আর আমি মনে করি, কমার্শিয়াল বা প্যারালাল ছবি বলে কিছু হয় না। সকলেই ছবি তৈরি করেন, দর্শককে দেখানোর জন্য, বক্স অফিসে হিট করানোর জন্য।

 

আপনি তো বাপি বাড়ি যার মতো মাল্টিপ্লেক্স ছবিতে কাজ করেছেন, যে ছবিতে শহুরে জীবনযাত্রা দেখানো হয়েছেআবার বোঝে না সে বোঝে নার মতো কমার্শিয়াল ছবিতেও কাজ করেছেনপার্থক্যটা কোথায় বলে মনে হয়?

আমি ছোটবেলা থেকেই খুব ফিল্মি! যশ চোপড়ার ছবি আমার খুব পছন্দের। তাই সবসময় চাইতাম, এমন একটা ছবিতে কাজ করব, যেখানে গান গাওয়া যাবে, নাচা যাবে! রাজ বা রবি কিনাগির ছবিগুলো অনেকটা লার্জার দ্যান লাইফ হয়! অন্যদিকে প্যারালাল ছবিগুলোর চরিত্র অনেক বেশি রিয়্যালিস্টিক। টেনে-টেনে কথা বলে। মনে হয়, সব চরিত্রই আমার পাশের বাড়ির লোক। তবে আমার ধারণা, এই বিভাজনটা বেশিদিন থাকবে না। যেমন ধরুন, ‘বোঝে না…’-এ আমার চরিত্রটা কিন্তু রিয়্যালিস্টিকই ছিল। কিন্তু ‘বোঝে না…’ আসলে ফুল ফ্লেজেড কমার্শিয়াল মুভি। এখন এমন ছবিও তো হচ্ছে। আমার মনে হয়, এমন ছবি তৈরি করতে হবে, যে ছবি সকলে দেখবে। মানে, ক্লাসও দেখবে আবার মাসও দেখবে। যেমন ধরুন, ‘গানের ওপারে’ সকলে দেখেননি। যাঁরা দেখেছিলেন, তাঁরা এখনও ‘পুপে’র কথা বলেন। কিন্তু সাধারণ দর্শক আমাকে চিনল কই? মাস এবং ক্লাস যখন একসঙ্গে একটা ছবি দেখবে, তখনই ইন্ডাস্ট্রির লাভ হবে। ওই জায়গাটাতেই আমাদের পৌঁছতে হবে।

 

আপনি এখন কী করছেন?

রাজের সঙ্গে ‘প্রলয়’ করলাম। এছাড়াও ‘গল্প হলেও সত্যি’ বলে একটি ছবি করলাম। আমার সঙ্গে সোহম আছে। কাজ প্রায় শেষ। এছাড়া সোহমের সঙ্গে রবি কিনাগির পরিচালনায় একটা ছবি করছি। ওটার নাম এখনও ঠিক হয়নি।

 

পরপর রাজ চক্রবর্তীর সঙ্গে কাজ করছেনআপনার আর রাজের মধ্যে নাকি বিশেষ সম্পর্কআছে?

এ আর নতুন কথা কী! রাজের সঙ্গে ওর সব নায়িকাদের নাম জড়িয়েই তো গসিপ হয়েছে। আমি বাদ যাব, এটা হতে পারে নাকি? তবে আমি ভেবেছিলাম, আমার সঙ্গে হয়তো লিঙ্কটা হবে না। কারণ, আমি তো একটু টমবয় টাইপের, অতটা মেয়েলি নই! কিন্তু…