নিজেকে প্রমাণ করাটা জরুরি: শুভশ্রী"/>
magazine_cover_12_november_18.jpg

Tolly Interview

নিজেকে প্রমাণ করাটা জরুরি: শুভশ্রী


মুক্তি পেয়েছে তাঁর ছবি‘হনিমুন’। ছবি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে নিজের ‘হনিমুন’ থেকে বিতর্ক, সব নিয়েই কথা বললেন শুভশ্রী। শুনলেন ঋষিতা মুখোপাধ্যায়

এখন কী অন্য ধরনের সিনেমা মানেই শুভশ্রী? যিনি একসময়ে হার্ডকোর কমার্শিয়াল নায়িকা ছিলেন। ‘আমার আপনজন’, ‘দ্যাখ কেমন লাগে’, ‘হনিমুন’-এ অভিনয়। ‘রসগোল্লা’তেও দেখা যাবে?
‘রসগোল্লা’তে শুধু গেস্ট অ্যাপিয়ারেন্স। শিবুদা ফোন করে বলল, রাজি হয়ে গেলাম। তবে একটা কথা বলি, আমি এখন থেকে সেই ছবিগুলোই করব, যেখানে আমার কিছু করার থাকবে। ভেবেচিন্তে স্ক্রিপ্ট বাছব।

কেন নিন্দুকদের (ওই যাঁরা বলেন শুভশ্রী অভিনয় পারেন না) মুখ বন্ধ করতেই কি?
মোটেও না। আমি ওদের কথা ভাবি না। নিজের ফিলিংসটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমার নিজের যখন যা করতে ইচ্ছে করবে, তাই করব। নিজের স্যাটিসফেকশনের জন্য কাজ করব। ছবিতে আমার যদি চারটে সিনও থাকে, সেই চারটে সিন দেখে লোকে যেন বলে, ‘বাহ ভাল অভিনয় করেছে।’ ইমপ্যাক্ট ফেলতে চাই। নিজেকে প্রমাণ করাটা জরুরি। তা ছাড়া কমার্শিয়াল বা প্যারালাল ভাগটাই আমি মানি না। আমার কাছে দু’ধরনের ছবি হয়, ভাল এবং মন্দ ছবি। আমাদের মানে অভিনেতাদের কাছে চরিত্রটা গুরুত্বপূর্ণ। সব সিনেমায় তো ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হয়, তাই না। এই ছবিটার কথাই ধরুন না, কোনও জটিলতা নেই। মিষ্টি প্রেমের গল্প। সহজ-সরলভাবে বলা একটা গল্প। আজকাল তো সহজ ভাবনা, কথা বলতে সকলেই ভুলে গিয়েছে। আমরা চেষ্টা করেছি, মানুষকে একটু আনন্দ দিতে, সহজভাবে হাসাতে। এই ছবিটা করার আরও একটা কারণ হল, পরিচালকের নাম প্রেমেন্দু বিকাশ চাকী। আমার ডেবিউ ছবির ডিওপি ছিলেন চাকীদা। তাই ওঁর ডেবিউ ছবিতে কাজ করার সুযোগ ছাড়তে চায়নি (হাসি)।

আচ্ছা, পরপর তিনটে ছবিতে (‘আমার আপনজন’, ‘দ্যাখ কেমন লাগে’, ‘হনিমুন’) আপনি আর সোহম। বাংলা ছবিতে কি আবার একটা নতুন জুটি হতে চলেছে?
সত্যি এই উত্তরটা আমার কাছেও নেই। সেই ২০০৮-এ একসঙ্গে ‘বাজিমাত’ করলাম। তারপর কেউ আর আমাদের একসঙ্গে কাস্ট করল না। আবার দেখুন, এক বছরে তিন-তিনটে ছবিতে আমরা একসঙ্গে কাজ করলাম। এর উত্তরটা প্রযোজকদের কাছে আছে হয়তো।

আপনার ছবির নাম ‘হনিমুন’। তা রিয়েল লাইফে ‘হনিমুন’-এর কী প্ল্যান?
ওটা আমি আপনাকে অফ রেকর্ড জানাচ্ছি (প্রবল হাসি)। আগে বিয়ে করি, তারপর ‘হনিমুন’ নিয়ে ভাবব।

আপনাকে ঘিরে একটা সময়ে প্রচুর বিতর্ক শুরু হয়েছিল। নানা কথাও শোনা গিয়েছে। বিতর্ক পরবর্তী সময়ে কেমন আছেন আপনি?
খুব ভাল আছি। এখন আমি অনেক পরিণত। ব্যস, আর একটা কথাও বলব না।

আগামী দশ বছর পর নিজেকে কোথায় দেখতে চান?
দূর! দশ কী বলছেন! আমি আগামী মাসে কী করব তাই জানি না। যা হবে দেখা যাবে।

আর কী-কী ছবি করছেন?
কিছু করছি না। হঠাৎ-হঠাৎ করে কাজ আসছে, আমি করে ফেলছি। কোনও প্ল্যান নেই। ‘নবাব’-এর পর কী করব, কিছু প্ল্যান ছিল না। তারপর ‘হনিমুন’-এর অফার এল। করে ফেললাম।