গোয়েন্দা গল্প নয় বলে আকৃষ্ট হয়েছি: আবির চট্টোপাধ্যায়"/>
magazine_cover_12_september_18.jpg

Tolly Interview

গোয়েন্দা গল্প নয় বলে আকৃষ্ট হয়েছি: আবির চট্টোপাধ্যায়

abir-big0
বেলগাছিয়া রাজবাড়িতে‘গুপ্তধনের সন্ধানে’ছবির শুটিংয়ে আবির চট্টোপাধ্যায় কথা বললেন ধৃতিমান গঙ্গোপাধ্যায়

ঘরে ঢুকে প্রথমে চমকে উঠতে হয়। পরিচালক গৌতম ঘোষের এতবড় একটি ছবি। বেলগাছিয়া রাজবাড়ি কি গৌতম ঘোষদের বাড়ির? সেই প্রশ্ন দিয়েই শুরু হল… আবির অবশ্য বললেন…
না না, ওটা সেটের অংশ। গৌতমদা এই ছবিতে অভিনয় করছেন, অর্জুন চক্রবর্তী যে চরিত্রটা করছে, তার মামা উনি। আর ওঁকে নিয়েই তো সব কাহিনির সূত্রপাত।

প্রশ্ন: কীরকম?
আমার চরিত্রটার নাম সুবর্ণ সেন, বিদেশে ইতিহাস পড়াত, ৬-৭ বছর পর দেশে ফিরেছে। মজার কথা, অর্জুনের চরিত্রটার নাম এখানে আবির, সে আমার ভাইপো। ভাইপোর মামাবাড়িতে গুপ্তধনের একটা খোঁজ পাই আমরা দু’জন। কিন্তু বেশি ইন্টারেস্টিং হচ্ছে, গুপ্তধন পাওয়ার উপায় হিসেবে মামার লিখে যাওয়া কিছু ধাঁধা। কাহিনিটার সঙ্গে বাংলা আর ভারতের ইতিহাস ওতপ্রোত ভাবে জড়িত। সেই গুপ্তধন খুঁজতে গিয়েই তো ছবি শুরু?

abir-big2

তার মানে আরও একটা গোয়েন্দা গল্প?
এটা একেবারেই গোয়েন্দা গল্প নয় কিন্তু। আর সেটাই আমায় আকৃষ্ট করেছে। বরং ইতিহাসপ্রেমিকের কাছে এই ছবি অনেক বেশি কাছের বলে মনে হবে। তাছাড়া সাহিত্যনির্ভর ছবিও নয়। সিনেমার জন্যই তৈরি হয়েছে। এটি যে একজন নতুন স্ক্রিপ্টরাইটার, তা মনেই হবে না। পুরনো বাংলা সিনেমার ধাঁচটাও আছে। একটা সময়ে গুপ্তধনের গল্প পড়ার অভ্যেস ছিল আমাদের সবার। সেটাও দর্শককে স্ট্রাইক করবে।

abir-big1

আবির চট্টোপাধ্যায় তাহলে একজন ইতিহাসপ্রেমীও বটে?
যে-কোনও কারণেই হোক, ছোটবেলায় আমাদের কারও কাছেই ইতিহাসটা খুব একটা পছন্দের বিষয় ছিল না। বিভিন্ন তথ্য মুখস্থ করে উগরে দেওয়া ছাড়া তো পরীক্ষায় কিছু করতে হত না। বড় হয়ে, গল্পের বই পড়ে, সিনেমা দেখে, বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে ইতিহাসকে ফিরে দেখা হয়। তখন ভাল লাগতে শুরু করে বিষয়টা। এই গল্পটা দু’টি প্রজন্মের কাছেই খুব ইন্টারেস্টিং হবে।

‘যখের ধন’-ও তো যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল। ফলে সেদিকটাও…
এই স্ক্রিপ্ট যখন শুনেছি, তখন কিন্তু ‘যখের ধন’ নিয়ে আমি কিছু জানি না। বিভিন্ন কারণে, ডেট ইত্যাদি পাওয়া যাচ্ছিল না… ফলে শুটিংটা শুরু হয়েছে দেরিতে।

আচ্ছা, পরবর্তী কাজ…
ব্যোমকেশ তো আছেই। কিন্তু আগে এটা সামলে নিই। যথেষ্ট কঠিন শুট, অনেকগুলি লোকেশনে শুটিং আছে। কলকাতায় বিভিন্ন লোকেশন, বোলপুর… একটা দৃশ্য হয়তো কয়েকটা জায়গা ঘুরে তৈরি হচ্ছে। ফলে কন্টিনিউটি একটা বড় চাপ। ধাঁধা, ইতিহাস মিলিয়ে এটা একটু যত্ন করে শুটিং করতে হচ্ছে। ফলে…