Category Archives: review list

fida-poster

ফিদা

প্রেম বনাম ইগো – এই দন্দ্ব নিয়েই পথিকৃৎ বসু পরিচালিত ছবি ‘ফিদা’। ছবিতে দুই ভিন্ন প্রকৃতির মানুষকে দেখি আমরা। একদিকে ঈশান (যশ) যে স্বভাবতই অত্যন্ত আবেগপ্রবণ ও বেপরোয়া। সে গোটা জীবনটাকেই চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখে।

bhagsesh-poster

ভাগশেষে

মাতৃত্ব, বন্ধুত্ব, প্রেম এবং অসম প্রেমের রসায়নে তৈরি নবাগতা পরিচালক রেমা বসুর ‘ভাগশেষ’। মধুমন্তী (মালবিকা সেন), অমিত (শুভ্রজিৎ দত্ত) আর বিশ্বজিৎ (অম্বরিশ ভট্টাচার্য)-এর বন্ধুত্ব দিয়ে সিনেমার শুরু হলেও, সম্পর্কের জটিলতা ঘুরে ফিরে সিনেমার মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে।

colours-of-life-poster

কালার্স অফ লাইফ

পুরো ছবি জুড়ে দর্শককে কাঁদাতেই চেয়েছিলেন পরিচালক। কিন্তু চোখের জলও বেরোতে গিয়ে বোর হয়ে আবার ফিরে গেল। যে কোনও দৃশ্য, তা সে যতই স্পর্শকাতর হোক না কেন, বেশিক্ষণ টানলে কি আর ভাল লাগে? ইমোশনাল দৃশ্যগুলির সংলাপ থেকে শুরু করে হাঁটাচলা, সবই এত ধীর গতির যে, ছবি দেখতে-দে‌খতে মনে হয় নিজেই উঠে গিয়ে দৃশ্যটা শেষ করে দিয়ে আসি।

sonar-pahar-poster

সোনার পাহাড়

সাধারণত বার্ধক্য নিয়ে ছবি করতে গেলেই একটা একপেশে মর‌্যালিটি, ভিকটিমাইজ়েশন, দুঃখের কাহিনি দেখানো হয়। বৃদ্ধরা একা, নবীনরা স্বার্থপর, ভিলেন… এমনটাই থাকবে। সেভাবে শুরু হলেও, সিমপ্যাথি টানলেও এই ছবিটি অন্যরকম।

aleya-poster2

আলেয়া

জায়গাটা টাকি-হাসনাবাদ, গল্পটা একজন… না একজন নয়, চারজন মেয়ের। যারা আসলে বাল্য সহচরী।

sanju-[oster

সঞ্জু

একজন অভিনেতার জীবন। সেটি বর্ণময়। তার জীবনে মাদকাসক্তি আছে, টাডা আইন আছে, জেল আছে, একাধিক নারীসঙ্গ আছে, অন্ধকারে তলিয়ে গিয়ে ফিনিক্স পাখির মতো ফিরে আসা আছে… সেই জন্যই বোধ হয় সঞ্জয় দত্তকে নিয়ে সাধারণ মানুষের এত আবেগ।

aharemon-poster

আহারে মন

এই সিনেমায় পরিচালক এই শহরের মধ্যে চারটি পৃথক ভালবাসা খোঁজা বা ভালবাসার জন্য অপেক্ষার গল্প বলেছেন। কাহিনির প্রতিটি চরিত্রেও আছে বেশ অভিনবত্ব। তাদের মধ্যে আছে চোর থেকে শুরু করে সন্তান পরিত্যক্ত বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দা পর্যন্ত অনেকেই।

ভাইজান এল রে…

জয়দীপ মুখোপাধ্যায়ের চতুর্থ ছবি ‘ভাইজান এল রে’ দেখতে গিয়ে মনে হল, গল্পের প্রথমভাগটা অতটা বড় না হলেও চলত। বরং, পায়েল আর শাকিবের অপ্রয়োজনীয় রোম্যান্সের গান বাদ দিলে চিত্রনাট্যে খানিকটা ভারসাম্য আসত।

sultan-poster

সুলতান, দ্য সেভিয়র

এই ছবিতে বিনোদনের পাশাপাশি যেটা আছে, তা হল বেশ ইন্টারেস্টিং একটা গল্প। রাজা (জিৎ) তার বোন দিশাকে (প্রিয়ঙ্কা) নিয়ে আসে কলকাতায়। দিশা ভাল ছবি আঁকে। বোনকে আর্ট কলেজে ভর্তি করে, চাকরি করে জীবন চালাবে… এই রাজার ইচ্ছে।

রেস ৩

সময়টা তো উৎসবের? সেইমতো তো গাঁটের কড়ি খরচ করে লোকে ভাইয়ের সিনেমা দেখতে যায়? জানি এটা অনসম্বল কাস্ট, কিন্তু ভক্তরা তো ছবিটাকে ‘ভাইজানের’ সিনেমা বলেই দেখতে গিয়েছে?