magazine_cover_12_october_18.jpg

 

Home sports ক্রিকেট-দাড়ির সেকাল-একাল

ক্রিকেট-দাড়ির সেকাল-একাল


সে এক যুগ ছিল! শ্মশ্রুগুম্ফ বাগিয়ে মাঠে নামতেন প্রবাদপ্রতিম ক্রিকেটাররা। স্যার ডব্লু জি গ্রেসকেই মনে করে দেখুন। যেমন বিরাট আয়তন (এবং কীর্তির) মানুষ, তেমনই বিরাট আয়তনের দাড়ি। গ্রেস অবশ্য ব্যতিক্রমই ছিলেন। সেযুগে, এবং তারও পর অনেকটা লম্বা যুগে, ‘হোয়াইটস’ পরিহিত ক্রিকেটাররা ছিলেন ভদ্রতার পরাকাষ্ঠা, কামানো গালই ছিল তাঁদের ‘ফ্যাশন’। লাফ মেরে ভারতীয় ক্রিকেটে ঢুকি। ক্লিন শেভ্‌ন-এর চেয়ে এখানে আবার গোঁফটা বেশি। পুরনো ক্রিকেট ভিডিয়ো গেম খুললেই বোঝা যাবে, গপ্‌পোটা কেমন। কপিল দেব, ভেঙ্গসরকর, রবি শাস্ত্রী হয়ে কুম্বলে-শ্রীনাথ-সৌরভ… সবাই ভরসা রাখতেন গোঁফেই। মজা হল, সচিন তেন্ডুলকরের গালে দাড়ি গজানোর পর। সেই সচিনকে মনে আছে তো? ফ্রেঞ্চকাট, এক কানে দুল, এক কথায় কুৎসিত? সে যুগে ভারতীয় দলে অনেকেই সচিনের দেখাদেখি ফ্রেঞ্চকাট রাখা শুরু করেছিলেন। মানাক চাই না মানাক, কুম্বলে-শ্রীনাথরাও ফরাসি কায়দাটি আপন করলেন। এটাই বোধহয় হয়। দলের সেরা যে পথে যায়, সে পথেই হাঁটেন বাকিরা। ফলে ফ্রেঞ্চকাট গেল। এল বিরাট কোহলির যুগ।

বিরাটের গালে চাপদাড়ি উঠতেই, ভারতীয় দলের সব্বাই গালে ওই দাড়ি বাগিয়ে ফেললেন। সব্বাই! অবশ্য গ্ল্যামজগতের এখন এটাই রীতি। মডেল, অভিনেতা, ক্রিকেটার, ফুটবলার… সবাই ট্রিম্‌ড চাপদাড়ি রাখেন। সে মেসি হোন বা জর্জ ক্লুনি। ম্যানলিনেস তো এভাবেই চেহারা বদলায়। ইতোমধ্যে আর একটি ট্রেন্ড ভারতীয় ক্রিকেট টিমের কল্যাণে মাথা চাড়া দিয়েছে। গতবছর থেকেই শুরু হয়েছে ব্যাপারটা। নাম, ‘ব্রেক দ্য বেয়ার্ড’। গ্রীষ্মকালে দাড়ি কুটকুট করে, তাই দাড়ি কেটে ফেলছেন ক্রিকেটাররা। আগেরবছর বেশ কিছু ক্রিকেটার এভাবে দাড়ি কামিয়ে ছোট করেছিলেন। এবার সদ্যসমাপ্ত আইপিএল-এর সময়ে আবার দেখা গেল সেই মজা। শাকিব অল হাসান একদিন পুরো দামিটাই কামিয়ে ফেললেন। তিনি অবশ্য নিজে থেকেই করেছিলেন।

কিন্তু তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে গেল দাড়ি কামানোর দৌড়। একজন করে মেকওভার করেন, তারপর আর একজনকে চ্যালেঞ্জ করেন। এভাবেই শিখর ধওয়ান, হার্দিক পাণ্ড্য, ক্রুনাল পাণ্ড্য, মনিশ পাণ্ডে, ঋষভ পন্‌থ মায় কেন উইলিয়ামসন অবধি দাড়ি হালকা করে, অন্য কায়দা এনেছেন। মজার কথা, এঁদের প্রায় সবার গালেই কিন্তু এখন ফ্রেঞ্চকাট! ট্রেন্ড কি তবে ফিরল? একজন অবশ্য এসব থেকে শতহস্ত দূরে। তিনি বিরাট কোহলি। আসলে তাঁর বেটার হাফ তো গতবারই বলে দিয়েছেন, দাড়িতে হাত দেওয়া চলবেই না!

Shikhar Dhawan, Break the beard, hardik pandya, krunal pandya, virat kohli, manish pandey