magazine_cover_12_august_17.jpg

Bolly Interview

সফল হলে লোকে অ্যারোগেন্ট বলে…

sushant-singh-rajput-big

অনেকেই বলছেন ‘ধোনি’র সাফল্যের পর বেশ উদ্ধত হয়ে গিয়েছেন সুশান্ত সিংহ রাজপুত। সত্যিই কি তাই? তাঁর মুখোমুখি অংশুমিত্রা দত্ত

 
 

আপনার এইট প্যাক্‌স তো সকলকে অবাক করে দিয়েছে! এই বডি ট্রান্সফরমেশনের রহস্য কী?
ধন্যবাদ কমপ্লিমেন্টের জন্য। এই বডি তৈরি একটা-ই কারণ। ‘রাবতা’-তে যেন আমাকে দেখতে একদম অথেন্টিক লাগে। ‘ধোনি’র শুট শেষ করার সময় আমার ওজন ছিল ৮৬ কেজি। ‘রাবতা’র প্রথম লুকের জন্য ১৩-১৪ কেজি কমাতে হয়েছে। তারপর যোদ্ধার চরিত্রের জন্য আবার ছ’ কেজি বাড়াতে হয়েছে। কিন্তু এই চেহারা তৈরি করতে আমি রেগুলার ওর্য়কআউট করিনি। যেভাবে ট্রেনিং করলে যোদ্ধার মতো শক্তি আর ফ্লেক্সিবিলিটি আসবে, তেমনভাবেই ট্রেন করেছি।

সকলের বক্তব্য আপনি ‘ধোনি’র সাফল্যের পর বেশ উদ্ধত্য হয়ে গিয়েছেন…
আপনার কী মনে হয়, সেটা বলুন। আমি কিন্তু বরাবরই খুব স্ট্রেট ফরওয়ার্ড। এখন ‘ধোনি’ রিলিজ় হয়ে গিয়েছে, দেড়শো কোটির বিজ়নেস করে ফেলেছে, এখন সবাই আমাকে অ্যারোগেন্ট বলছে। একবার সাফল্য এসে গেলে সবাই বলে, আরে ওর তো মাথা ঘুরে গিয়েছে! নিজেকে বিশাল কিছু মনে করছে। কিন্তু আমি এরকমই ছিলাম। এখন লোকে নোটিস করছে।

কিছুদিন আগে তো এক সাংবাদিকের সঙ্গে আপনি বেশ মাথা গরম করেই কথা বলেছেন!
দেখুন, আমাকে সেই সাংবাদিক বলেছিলেন কুলভূষণ যাদবের সাজা নিয়ে মন্তব্য করতে। আমি বলেছিলাম, এব্যাপারে মন্তব্য করার মতো জ্ঞান আমার নেই, অতএব আমি কোনও মন্তব্য করব না। তাতে উনি বললেন, আমরা জাতীয় স্বার্থের প্রশ্ন এড়িয়ে যেতে পারি না। আশ্চর্য তো! সেলেব্রিটি বলে কি সব জানতে হবে? হতেই পারে, আমি এই ব্যাপারে কিচ্ছু জানি না। সেটা স্বীকার করে নেওয়াই তো উচিত! নাকি আমি না জেনেশুনে মন্তব্য করে দিলে সেটা ঠিক হবে? কিন্তু উনি বারবার এই ব্যাপারে প্রশ্ন করেই যাচ্ছিলেন! বারবার প্রশ্ন করলে তো আমার উত্তরটা বদলে যাবে না!

sushant-singh-rajput-big2

শোনা যায়, সাংবাদিকরা কৃতি স্যাননকে বাঁকা প্রশ্ন করলেও আপনি উত্তর দিয়ে দেন?
মোটেই না! আমি বেশি কথা বলি না। আমি শুনতে পছন্দ করি।

নতুন গাড়ি কেনার পর কিন্তু প্রথম ড্রাইভের সঙ্গী কৃতিই…
আরে, ‘রাবতা’র জন্য কত জায়গায় একসঙ্গে যেতে হচ্ছে! তবে আমাদের নিয়ে গুজবটা অনেকদিন ধরেই হচ্ছে। এখন গা-সওয়া হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তারপর একদিন শুনলাম, কৃতি আমাকে ডাম্প করে দিয়েছে। ওটা হজম করতে পারিনি (হাসতে-হাসতে)। আমি ছেলে বলেই আমাকে ডাম্প করবে! প্লিজ় আমার মেল ইগো এভাবে হার্ট করবেন না! বাকি যা গসিপ করার করুন।

নেপোটিজ়ম নিয়ে তো বলিউড সরগরম। আপনি আউটসাইডার। কীভাবে দেখেন ব্যাপারটা?
নেপোটিজ়ম বলিউডে রয়েছে ঠিকই। কিন্তু অন্য সমস্ত ফিল্ডেই রয়েছে। তবে নেপোটিজ়মের পাশাপাশি বলিউডে নতুন যোগ্য লোকদের জন্য জায়গাও আছে। সেটাই আসল ব্যাপার। যদি নেপোটিজ়মের জন্য নতুনদের সুযোগ দেওয়া না হত, তাহলে আপত্তি থাকত। কিন্তু দুটো জিনিস শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান করতে পারলে ক্ষতি কী!

শোনা গিয়েছিল, দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সী’র সিকোয়েল হবে। সেটার কী খবর?
আমার কাছে তো কোনও খবর নেই। দিবাকর শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের সব গল্পের রাইট্‌স কিনে রেখেছিল। তখন কথাও হয়েছিল সিকোয়েলের। কিন্তু তারপর কেন ছবিটা হল না বলতে পারব না। আমিও অপেক্ষায় রয়েছি।